এবার গাছের আম নয়, ২১৩টাকা করে ৪৫টি গাছ বিক্রি করেছে বিএমডিএ

মাহবুব হোসেন:
এবার গাছের আম নয়, পুরো গাছ বিক্রি করে দিয়েছে বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। বিক্রি করা ৪৫টি গাছের যার প্রতিটি মূল্যে ধরা হয়েছে মাত্র ২১৩টাকা। গাছকাটা আদেশ পেয়ে বুধবার গাছ কাটা শুরু করেছেন ঠিকাদার আমীর আলী। ইতোমধ্যে জোরে শোরে নাটোর-ঢাকা মহাসড়কের গাজীরবিল এলাকায় গাছকাটা উৎসব। গতবছর বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিক্রি করা ওই সব প্রতিটি গাছের আম বিক্রি করে ছিলো মাত্র ১৬টাকায়।

বিএমডিএ অফিস সূত্র জানায়, পুষ্টির চাহিদা পূরণ ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় ২০০৭-০৮ অর্থ বছরে নাটোর-বনপাড়া মহাসড়কের উভয় পাশে আমসহ অন্যান্য ফলদ গাছ রোপণ করে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ)। উদ্দ্যেশ্য ছিল,পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা, পুষ্টির চাহিদা পূরণ ও বন্য প্রাণীদের জন্য প্রাকৃতিক খাবারের উৎস।

জানা যায়, গত ৮ মার্চ বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ পাবনার দাশুরিয়া হতে নাটোর মহাসড়কের পাশে ৯৬ কিলোমিটার পর্যন্ত ৪৫টি আম গাছ বিক্রির জন্য নিলাম আহ্বান করে। ওই নিলামে অংশ নিয়ে নির্বাচিত হন নাটোর সদর এলাকার আমীর আলী। এতে ৪৫টি গাছের মোট মূল্য ধরা হয়েছে মাত্র ৯ হাজার ৬০০ টাকায়।
এ সংক্রান্ত তথ্য জানিয়ে গত ৩রা মে আমীর আলী বরাবর গাছ কর্তনের কার্যাদেশ প্রেরণ করেন বরেন্দ্রর নাটোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী আহসানুল করিম। প্রকৌশলীর মনোনীত প্রতিনিধির উপস্থিতিতে গাছ কাটার নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে সকালে বরেন্দ্রর কোনো প্রতিনিধির উপস্থিতি ছাড়াই গাছ কাটা শুরু করেন আমীর আলী।

বরেন্দ্র গাছ কর্তন-০২

স্থানীয়রা জানান, এসব গাছের প্রতিটিতে আম ধরেছিল। ক’দিন আগেও গাছগুলোতে আমের থোকা ঝুলছিল। কার্যাদেশ প্রাপ্তির পর তড়িঘড়ি করে ক্রেতা আমীর আলী আমগুলো সংগ্রহ করে গাছগুলো কাটা শুরু করেন। প্রতিটি গাছ থেকে প্রায় ১০ মণ খড়ি পাওয়া যাবে যার বাজার মূল্যই আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা। এভাবে গাছপ্রতি ন্যুনতম আড়াই হাজার থেকে ২৭০০ টাকা লোকসানে বিক্রি করেছে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এতে সরকারের প্রায় ১ লাখ ১২ হাজার টাকা ক্ষতি হয়েছে।

নিলাম প্রক্রিয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে গাছের ক্রেতা আমীর আলী রাগান্বিত হন। তিনি বলেন, ‘আমি যথাযথ প্রক্রিয়া মেনে নিলামে নির্বাচিত হয়েছি। আমি সাংবাদিকদের নিলামের ব্যাপারে বলতে বাধ্য নই। সাংবাদিকরা আমাকে টাকা দেয় না যে তাদের কথা শুনতে হবে।’

এ ব্যাপারে বরেন্দ্রর নাটোর জোনের সহকারী প্রকৌশলী আহসানুল করিমের বক্তব্য জানতে একাধিকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

তার খোঁজে অফিসে যাওয়া হলে অফিসের নিরাপত্তা কর্মী আবদুল বারেক জানান, এখন কেউ অফিস করেন না। তিনি নিজেই শুধু পাহারা দেন। গত দুই-তিনদিনে কেউ আসেননি। গাছ কাটার ব্যাপারে কোনো আদেশ প্রদান করা হয়েছে কি না বলতে পারবো না।

জেলা প্রশাসক মোঃ শাহরিয়াজ বলেন, খুবই নগণ্য দামে গাছগুলো বিক্রির কথা শুনেছি। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত বছর ১২মে ৯১২টি গাছের আম মাত্র ১৬টাকায় (পুরো গাছের আম) বিক্রি করে বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ পরিবেশ কর্মীদের মধ্যে হইচই শুরু হয়।

একটি উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন

- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

লালপুরে কৃষক-কৃষানীর প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক, লালপুর নাটোরের লালপুরে ২০১৯-২০ অর্থবছরে কন্দল জাতীয় ফসল উৎপাদনে আধুনিক কলাকৌশল বৃদ্ধিতে উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় দিনব্যাপী কৃষক-কৃষানী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার দুপুরে লালপুর...

নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত কাঠমিস্ত্রিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, আসছে বর্ষাকাল,বিল এলাকা নামে পরিচিত নাটোরের বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলের জেলে পাড়ায় চলছে বর্ষাকালের নানান আয়োজন । বিশেষ করে নাটোরের জেলে সম্প্রদায়ের লোকেরা এখন...

নাটোরে করোনা উপসর্গ নিয়ে গৃহবধূর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোরে করোনা উপসর্গ নিয়ে রুমা (২২) নামে এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের আইসলেশান ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোররাতে তার মৃত্যু...

লালপুরে ওয়ালিয়া ইউপি’র উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক, লালপুর নাটোরের লালপুর উপজেলার ওয়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে দেশ ব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধে সামাজিক...